স্বাগতম - PowerPoint PPT Presentation

winona
slide1 n.
Skip this Video
Loading SlideShow in 5 Seconds..
স্বাগতম PowerPoint Presentation
Download Presentation
স্বাগতম

play fullscreen
1 / 25
Download Presentation
স্বাগতম
322 Views
Download Presentation

স্বাগতম

- - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - E N D - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - - -
Presentation Transcript

  1. স্বাগতম

  2. প্রাণীর বিভিন্নতা একাদশ অধ্যায় শ্রেণীঃ১০ম

  3. শ্রেণিবিন্যাস প্রোটোজোয়া Protozoa Cnidaria শ্রেণিবিন্যাসকরণঃ জীবদের পারস্পরিক সম্পর্ক ও চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের মিল ও অমিলের ভিত্তিতে বিজ্ঞান সম্মত উপায়ে বিভিন্ন দল বা স্তর বা ধাপে সাজানো হয়। জীব জগৎকে এ ধাপে ধাপে বিন্যস্ত করার পদ্ধতিকে শ্রেণিবিন্যাসকরণ বলে।

  4. Homo Panthera sapiens tigris Copsychus saularies ilisha Tenualosa

  5. দ্বিপদ নামকরণঃ প্রজাতির নামকরণের জন্য লিনিয়াস প্রবর্তিত পদ্ধতিকে দ্বিপদ নামকরণ বলে। প্রত্যেক নামের জন্য দুটি করে পদ থাকবে । দ্বিপদ নামকরণের পদ্ধতি অনুসারে লিখিত নামকে বৈজ্ঞানিক নাম ও বলা হয়। Tenualosa ilisha Homo sapiens Panthera tigris

  6. প্রাণিগুলো লক্ষ্য করি Tenualosa ilisha ইলিশ Pila globosa শামুক

  7. PROTOZOA একটি মাত্র কোষ দ্বারা প্রোটোজোয়া পর্বের প্রাণিদের দেহ গঠিত। অণুবীক্ষণ যন্ত্র ছাড়া দেখা যায়না। দেহে পৃথক অঙ্গপ্রত্যঙ্গ নেই, একটিমাত্র কোষ দিয়ে জৈবিক কাজ নিয়ন্ত্রণ করে । AMOEBA অবস্থানঃপানিতে বা স্যাতঁস্যাঁতে মাটিতে। স্বাধীনজীবি হিসেবে অথবা পরজীবি হিসেবে বাস করে।আবিষ্কৃত প্রাণির সংখ্যা – ৫০০০০। অ্যামিবা , এন্টামিবা , প্লাজমোডিয়াম , প্যারামেসিয়াম ।

  8. আমাশয়ের জীবাণু Entamoeba Paramecium

  9. ENTAMOEBA কিভাবে আক্রান্ত হয়ঃ এন্টামিবা দ্বারা আক্রান্ত মানুষের মলের সাথে পরিবেশে ছড়ায়। আমাশয়ের জীবাণুঃ এন্টামিবা সরল এককোষী প্রাণি। পরজীবি হিসেবে মানুষের অন্ত্রে বাস করে দেহ সাইটোপ্লাজম ও নিউক্লিয়াস দিয়ে গঠিত দেহের চারদিকে পাতলা পর্দা দিয়ে তৈরি। পানি ও শাক-সবজির মাধ্যমে ছড়ায়। জীবাণু মানব দেহে প্রবেশ এবং অন্ত্রে আমাশয় রোগ সৃষ্টি কর। লক্ষণঃ তলপেটে ব্যথা হয়। মলের সাথে রক্ত ও শ্লেষ্মা বের হয়।

  10. পানি ও শাক-সবজী যাথে দূষিত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা। প্রতিকারঃ মাছি ও আরশোলা থেকে খাদ্যদ্রব্যকে রক্ষা করা । যেখানে সেখানে মলত্যাগ না করা। টিউব অয়েলের পানি পান করা । চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া।

  11. ম্যালেরিয়া জীবাণুর জীবনচক্র

  12. ম্যালেরিয়া জীবাণুর নিয়ন্ত্রণ • নিম্নলিখিত ব্যবস্থাগ্রহণের মাধ্যমে ম্যালেরিয়া নিয়ন্ত্রণ সম্ভবঃ মশা ধ্বংস করা। মশার প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস করা মশার কামড় থেকে আত্মরক্ষা করা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ সেবন করা।

  13. পরিফেরা(Porifera) Schyphagelatinosum Spongillafragilis

  14. এ পর্বের প্রাণিদের স্বভাব ও বাসস্থানঃ • পরিফেরা পর্বের প্রাণিদেরকে সাধারণত স্পঞ্জ বলা হয়। • এদের অধিকাংশ সমুদ্রে পাওয়া যায় তবে কিছু প্রজাতি স্বাদু পানিতে ও বাস করে। • এরা পানির নিচে কোন বস্তুর সাথে স্থায়ীভাবে যুক্ত থাকে । • এরা বহুকোষী তবে কোষের কোনো নির্দিষ্ট বিন্যাস বা কলাতন্ত্র নেই। • এদের দেহপ্রাচীর অসঙ্খ্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ছিদ্রযুক্ত।

  15. এদের মাধ্যমে পানি , অক্সিজেন ও খাদ্যবস্তু দেহের ভিতরের পানি বাইরে বের হয়ে যায়। • স্পঞ্জ ধোয়া-মোছা বা গোসলের কাজে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। • কৃত্রিম স্পঞ্জ অনেক দেশ বাণিজ্যিকভাবে চাষ করে । • এ পর্বের আবিষ্কৃত প্রাণির সংখ্যা – ৫০০০। Spongilla Spongilla Schypha

  16. Cnidaria(নিডেরিয়া) Obelia Obelia Aurelia Probal Aurelia aurita Hydra vulgaris

  17. Cnidaria(নিডেরিয়া) এ পর্বের প্রাণিদের স্বভাব ও বাসস্থানঃ • পৃথিবীর প্রায় সকল অঞ্চলে এই প্রজাতীর প্রাণি দেখা যায়। • এদের অধিকাংশ প্রাণি সামুদ্রিক। • তবে অনেক প্রজাতী খাল , বিল , নদী , হ্রদ , ঝরনা ইত্যাদিতে দেখা যায়। • কিছু কিছু একক ও দলবদ্ধভাবে কলোনি গঠন করে। • এরা সাধারণত পানিতে ভাসমান কাঠ,পাতা বা অন্য কিছুর সাথে আঠকে বা মুক্তভাবে সাঁতার কাটে। • এ পর্বের আবিষ্কৃত প্রাণির সংখ্যা – ১০০০। স্বভাব ও বাসস্থানঃ

  18. সাধারণ বৈশিষ্ট্যঃ (ক) এদের দেহ দু ভ্রূণীয় কোষ স্তর দ্বারা গঠিত। দেহের বাইরের দিকের স্তরটি এক্টোডার্ম এবং ভেতরের স্তরটি মেসোডার্ম (খ) এদের দেহ গহ্বরকে সিলেন্টেরন বলে। এটা একেধারে পরিপাক ও সংবহণে অংশ নেয়। (গ) এক্টোডার্মে নিডোব্লাস্ট নামে এক বৈশিষ্ট্যপূর্ণ কোষ থাকে। এই কোষগুলো শিকার ধরা , আত্মরক্ষা , চলন , ইত্যাদি কাজে অংশ নেই।

  19. নিচের বাক্য গুলোর সাথে মিল খুঁজি। সরল এককোষী প্রাণি প্লাজমোডিয়াম দ্বিপদ নামকরণ হল Copsychus saularis দুটি নাম নিয়ে গঠিত পদ। Panthera tigris ৫০,০০০ স্রেণিবিন্যাসের জনক ক্যারোলাস লিনিয়াস দোয়েল পাখির প্রাণিতাত্ত্বিক নাম রয়েল বেঙ্গল টাইগার Protozoa পর্বের প্রাণির সংখ্যা পরজীবি এন্টামিবা

  20. উত্তর গুলো মিলিয়ে নিই প্লাজমোডিয়াম পরজীবি দ্বিপদ নামকরণ হল দুটি পদ নিয়ে গঠিত নাম । Panthera tigris রয়েল বেঙ্গল টাইগার ক্যারোলাস লিনিয়াস স্রেণিবিন্যাসের জনক Copsychus saularis দোয়েল পাখির প্রাণিতাত্ত্বিক নাম Protozoa পর্বের প্রাণির সংখ্যা ৫০,০০০ সরল এককোষী প্রাণি এন্টামিবা

  21. Copsychus saularies Homo sapiens Panthera tigris Tenualosa ilisha

  22. এসো উত্তর গুলো মিলিয়ে নিই। Homo Panthera sapiens tigris Copsychus saularies ilisha Tenualosa

  23. আল্লাহ হাফেজ মুহাম্মদ ইসমাইল সিনিয়র শিক্ষক চরখাগরিয়া খাদিম আলী চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় খাগরিয়া,সাতকানিয়া,চট্টগ্রাম। Cell:01815602798